Follow us on

কিছুটা ট্রেন্ড আর কিছুটা নিজস্বতা দিয়ে সাজ তৈরি হয় কলকাতায়: শর্বরী

শহরকে পোশাকে ধরে রাখার প্রয়াসে কলকাতার ফ্যাশন নিয়ে কথা বলতে গিয়ে শর্বরী বললেন, ‘‘কলকাতার ফ্যাশন তার ক্রাফ্টকে ঘিরে গড়ে উঠেছে। কাঁথা, বাটিক, হাল্কা সিল্কের উপর হয়তো একটু কাজ। হাল্কা সিল্কে ব্রাশ প্রিন্ট... বিষয়টাকেই আমরা ধরে রাখতে চাই।’’

স্রবন্তী বন্দ্যোপাধ্যায়
কলকাতা| ৩১ জানুয়ারি, ২০২০, ০৬:৫১ শেষ আপডেট: ৩১ জানুয়ারি, ২০২০, ০৭:০৮
পুরনোকে ছুঁয়ে নতুনকে আঁকড়ে ধরছে কলকাতার সাজ

ফ্যাশন ডিজাইনার তকমা দেওয়া হলেও তিনি মনে প্রাণে শিল্পীই। মকবুল ফিদাহু সেন থেকে সচিন তেন্ডুলকর— তাঁর ক্লায়েন্টেল ঈর্ষণীয়। শর্বরী দত্ত জানালেন কলকাতার ফ্যাশনের কথা।
তাঁর স্টুডিয়ো ‘শূন্য’-তে রেশমী বাগচীর সঙ্গে বসে আজও তিনি হাতে এঁকে ডিজাইন করেন। ইদানীং শহর নিয়ে ভাবছেন তিনি। বারাণসী রোম আর কলকাতা।
শহরকে পোশাকে ধরে রাখার প্রয়াসে কলকাতার ফ্যাশন নিয়ে কথা বলতে গিয়ে শর্বরী বললেন, ‘‘কলকাতার ফ্যাশন তার ক্রাফ্টকে ঘিরে গড়ে উঠেছে। কাঁথা, বাটিক, হাল্কা সিল্কের উপর হয়তো একটু কাজ। হাল্কা সিল্কে ব্রাশ প্রিন্ট... বিষয়টাকেই আমরা ধরে রাখতে চাই।’’

আরও পড়ুন:মেক আপ তোলার সময় এ সব ভুল করেন না তো? বলিরেখা রুখতে খেয়াল রাখুন!

আংরাখা স্টাইল ফিরে আসছে পুরুষের পোশাকে

কলকাতার ফ্যাশন মানুষ-নির্ভর বলে মনে করেন শর্বরী। তিনি দেখেছেন,কিছুটা ট্রেন্ড আর কিছুটা নিজস্বতা দিয়ে এখানে সাজ তৈরি হয়। বিষয়কে আরও স্পষ্ট করে বুঝিয়ে দিলেন শর্বরী,‘‘যে যার মুড অনুযায়ী আজকাল পোশাক পরে। যেমন, আইটি সেক্টরের কম বয়সি ছেলে বলেন,তিনি সাদা বা প্যাস্টেল শেডের মধ্যে কিছু পরবেন, অন্য দিকে ষাট বছরের একজন বলেন, তিনি লাল রঙের পাঞ্জাবিই চান।’’

আরও পড়ুন:কলকাতার দূষণ থেকে ত্বক বাঁচাতে হাতের কাছে রাখুন এই উপাদান

শাড়ির ক্ষেত্রে যেমন নানা রকমের ড্রেপিং চলছে আজকের কলকাতায়। সেই প্রসঙ্গ উঠতে শর্বরী বললেন, ‘‘কেউ লেগিনসের সঙ্গে শাড়ি পরে সেক্সি পা হাইলাইট করতে চাইছেন। তাঁরা চাইলে পায়ের একটা অংশ খালি রেখে খালি পা-ও দেখাতে পারেন। কেউ চাইলে শুধু ব্লাউজ দিয়েও দারুণ একটা শাড়ি পরতে পারেন।’’
কলকাতার ফ্যাশন মানে শুধু শাড়ি নয়।

 

শাড়ির ক্ষেত্রে যেমন নানা রকমের ড্রেপিং চলছে আজকের কলকাতায়

শর্বরী জানেন, আজকের মেয়েরা শুধু শাড়িতে সন্তুষ্ট নয়। তাই এই বিয়ের মরসুমে রাজ ঘরানার জৌলুস আনতে লেহেঙ্গা-চোলির অনবদ্য ডিজাইন করেছেন তিনি।
কলকাতা আসলে সব ধারার মানুষের পছন্দের জায়গা, তাই শাড়ি থেকে গাগড়া ডিপ নেক ব্লাউজ সব কিছুকেই সাবেক আর আধুনিকতায় ধরতে চেয়েছেন তিনি। ‘‘তবে জরদৌসির চাহিদা কলকাতা থেকে সরে এসেছে। কাচের কাজের জায়গায় গুজরাতি কাঁথা কাজের চল বেড়েছে। চলছে হাল্কা সিকোয়েন্সের কাজ,’’যোগ করলেন রেশমী।
ছেলেদের পোশাকে বরাবর অভিনবত্ব আনলেও আজও তিনি মনে করেন, কলকাতার পুরুষ খুব বেশি কাট অ্যান্ড স্টাইলে এক্সপেরিমেন্ট করতে চায়না। বরং আংরাখা স্টাইল ফিরে আসছে পুরুষের পোশাকে।পুরনোকে ছুঁয়ে নতুনকে আঁকড়ে ধরছে কলকাতার সাজ।

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে পেতে
Read our Email Policy Here
bbb
আরও পড়ুন